মায়ের মত আর কাউকেই এত অনায়াসে তুষ্ট করা যায়না

ফেসবুকীয় লেখা June 2, 20161,333
মায়ের মত আর কাউকেই এত অনায়াসে তুষ্ট করা যায়না

আকাশ নতুন চাকরির বেতন পেয়ে তার মা আর স্ত্রীর জন্য মার্কেটিং করে বাড়ি ফিরল। স্ত্রীর হাতে একটা সুন্দর শাড়ি তুলে দিতেই স্ত্রী জানতে চাইল, শাড়িটার দাম কত?


আকাশ বলল— সাড়ে তিন হাজার টাকা।


স্ত্রী— এটা তুমি কি করছো! আর ৫০০ টাকা বেশি দিয়ে একটা জামদানী নিয়ে আসতে আর এটার রংটাও তো কেমন যেন! এতক্ষণে আকাশের আনন্দ অনেকটাই উবে গেছে। এবার আকাশ একটা শাড়ির প্যাকেট নিয়ে তার মার ঘরে গেল।


— মা, আজ বেতন পেয়েছি, এটা তোমার জন্য। মা প্যাকেট খুলতে খুলতে বলল— কি এটা? ওমা, শাড়ি! এটা আনতে গেলি কেন? আমার কি শাড়ি কম আছে? টাকাপেয়েই বাজে খরচ...কত নিল এটা?


— ৫০০ টাকা। — এই টাকা ভরে বৌমার জন্য আরেকটু ভালো দেকৈ একটা শাড়ি আনতে পারলিনা??? — ওর জন্যও এনেছিতো...এটা তোমার... মায়ের মুখে আনন্দের হাসি দেখেই আকাশ বুঝে নিল, শাসন যতই করুক, মনে মনে মা কতটা খুশি হয়েছে।


পরদিন মাঐ ৫০০ টাকার শাড়িটা পরে আশে- পাশের বাড়ির সবাইকে সেটা গর্বের সাথে দেখালো। যে-ই জানতে চায়, কি ব্যাপার আন্টি? হঠাৎ নতুন শাড়ি! আকাশের মা মুচকি হেসে বলে— ছেলে বেতন পেয়ে কিনে দিয়েছে। মাকে ছাড়া কিচ্ছু বোঝেনা। পাগল ছেলে একটা... !!!


কিন্তু আকাশের স্ত্রী তার শাড়িটা একদিনের জন্যও গায়ে তোলেনি! পাছে বান্ধবীরা শাড়ির দাম, রং নিয়ে নিন্দা করে! পৃথিবীতে মায়ের মত আর কাউকেই এত অনায়াসে তুষ্ট করা যায়না। এখন আমার প্রশ্ন হল, তবুও কেন মায়েদের বৃদ্ধাশ্রমে যেতে হয় কেন? বৃদ্ধাশ্রমে বসে মৃত্যুর প্রহর গুণতে হয় কেন???