অ্যান্ড্রয়েড ফোনের নিরাপত্তার বাড়তি ৩ কৌশল

মোবাইল টিপস May 26, 2016 1,475
অ্যান্ড্রয়েড ফোনের নিরাপত্তার বাড়তি ৩ কৌশল

বেশিরভাগ ব্যবহারকারীর হাতে এখন অ্যান্ড্রেয়ড অপারেটিং চালিত স্মার্টফোন। দৈনন্দিন সব কাজে ফোনের ব্যবহারও বাড়ছে। একই সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে সাইবার আক্রমণ। আর চুরি বা হারিয়ের যাওয়ার ঘটনাতো ঘটছেই।


এসব ক্ষেত্রে আপনার প্রয়োজনীয় ও ব্যক্তিগত অনেক তথ্য হাতছাড়া হতে পারে। তবে একটু সচেতন থাকলে ফোনে তথ্যের নিরাপত্তা রক্ষা করা সম্ভব।


এ টিউটোরিয়ালে অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসে তথ্য নিরাপদ রাখার তিন কৌশল তুলে সম্পকে।



ফোন লক রাখা

অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসের নিরাপত্তার প্রথম ধাপ হলো ফোনের স্ক্রিন লক চালু করা। তাহলে ফোনটি অন্য কারও হাতে পড়লেও তথ্য চুরির ভয় থাকবে না।


এ জন্য সেটিংস থেকে স্ক্রিন লক অপশনটি চালু করতে হবে। লক করতে পাসওয়ার্ড, প্যাটার্ন ও ফিঙ্গার প্রিন্ট ব্যবহার করা যায়। ফোনে ফিঙ্গার প্রিন্ট ফিচার থাকলে স্ক্রিন লক করতে সেটি ব্যবহার করা উচিত।


এনক্রিপ্ট ফিচার চালু

ফোন লক রাখলেও ইন্টারনেট চালু অবস্থায় তথ্য আদান-প্রদানের সময় ব্যবহারকারীদের তথ্য চুরি হতে পারে। তাই এনক্রিপ্ট ফিচার চালু করে রাখা উচিত।


এ ফিচার ফোনের সেটিংস থেকে প্রাইভেসি অপশনে পাওয়া যাবে। ফিচারটি অন থাকলে ফোনের যাবতীয় ডেটা থাকবে নিরাপদ।


ডিভাইস ম্যানেজার চালু

স্মার্টফোন চুরি বা হারিয়ে যেতে পারে যে কোনো সময়। ফোন ফিরে না পেলেও এতে অনেক ব্যক্তিগত ছবি বা তথ্য থাকতে পারে, যা অন্য কারও হাতে গেলে সমস্যা হতে পারে।


তাই অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস ম্যানেজার সেটিংসটি চালু রাখতে হবে। এ ফিচার চালু থাকলে ফোনটিতে ইন্টারনেট সংযোগ দেওয়া হলে আপনি সেটির অবস্থান জানতে পারবেন কিংবা হ্যান্ডসেটে থাকা সব ডেটা মুছে ফেলতে পারবেন।