জ্যাকের সেঞ্চুরিতে বিপিএলে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড কুমিল্লার

ক্রিকেট দুনিয়া February 13, 2024 2,504
জ্যাকের সেঞ্চুরিতে বিপিএলে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড কুমিল্লার

বিপিএল ফিরল চট্টগ্রামে। প্রথম ম্যাচেই রান বন্যা দেখাল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। আগে ব্যাট করতে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স সংগ্রহ করে ২৩৯ রানের বড় সংগ্রহ। যা এবারের বিপিএলে সর্বোচ্চ সংগ্রহ, আর পুরো বিপিএলের হিসাবে যৌথভাবে সর্বোচ্চ রানের ইনিংস।


লিটন-জ্যাকসের উদ্বোধনী জুটিতে আসে ৮৬ রান। ফিনিশিংয়ে দাপট দেখান মইন আলি ও উইল জ্যাকস, ৫৩ বলে তারা করেন ১২৮। এবারের বিপিএলে দ্বিতীয় সেঞ্চুরির রেকর্ড গড়তে জ্যাকসের লাগে কেবল ৫০ বল। ৫ বাউন্ডারি ও ১০ ছক্কায় ১০৮ রানের অতিমানবীয় ইনিংস খেলে যান কুমিল্লার এই ইংলিশ ওপেনার।


লো স্কোরিং ম্যাচের জন্য মিরপুরের উইকেটের বদনাম রয়েছে। এবারের বিপিএলে সিলেটও পেল সে তকমা। তবে বন্দরনগরী চট্টগ্রামে প্রায় সব ম্যাচই হাইস্কোরিং হবে, তারই একটা ধারণা পাওয়া গেল কুমিল্লার ব্যাটিং ইনিংস দেখে। ৩১ বলে বিপিএলে নিজের প্রথম ফিফটি পাওয়া উইল জ্যাকস ইনিংস টেনে নিয়ে গেছেন শতকে। ৫০ বলে এবারের বিপিএলে দ্বিতীয় সেঞ্চুরির রেকর্ড গড়লেন উইল জ্যাকস।


টসে হেরে ব্যাট করতে নামা কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স পায় উড়ন্ত সূচনা। অধিনায়ক লিটন দাস পাওয়ার প্লে তে রীতিমতো তাণ্ডব চালান চ্যালেঞ্জার্সের বোলিং লাইনের উপর। পাওয়ার প্লের ৬ ওভারেই কুমিল্লার স্কোরবোর্ডে আসে ৬২ রান। যা এবারের আসরে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ। ২৬ বলে পঞ্চাশ পূর্ণ করা লিটন হাঁকিয়েছেন ৭ বাউন্ডারি ও ৩ ছক্কা। ৫০ রানের মধ্যে ৪৬ রানই বাউন্ডারি থেকে পান লিটন। বাউন্ডারি বিহীন ১৬ বলে লিটন করেছেন কেবল ৪ রান।


আক্রমণাত্মক ব্যাটিংয়ে লিটন-জ্যাকস জুটির রান যখন ৮৬ তখনই চট্টগ্রামকে গুরুত্বপূর্ণ ব্রেকথ্রু এনে শহিদুল ইসলাম। শুধু লিটনকে ফিরিয়েই ক্ষান্ত হননি শহিদুল, পরের বলে লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলেন তাওহীদ হৃদয়কে। ব্যাক টু ব্যাক উইকেট খুইয়ে চাপে পড়ে যায় কুমিল্লা। লিটন প্যাভিলিয়নে যান ব্যক্তিগত ৬০ রানে। আগের ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান হৃদয় আজ পেয়েছেন গোল্ডেন ডাকের স্বাদ।


ব্রুক ডেভিড গেস্ট এদিন ইনিংস বড় করতে ব্যর্থ হন। ১১ বল খেলা ব্রুক ১০ রানের বেশি করতে পারেননি। আগের দিন বাংলাদেশে এসে আজ ম্যাচ খেলতে নামা মইন আলি শুরু থেকেই হয়ে ওঠেন মারমুখী।


এর মাঝেই টিকে থাকা উইল জ্যাকস স্ট্রোক্সের ফোয়ারা ছুটিয়ে ৩১ বলে পেয়েছেন বিপিএল ইতিহাসে নিজের প্রথম ফিফটির দেখা। সেঞ্চুরি হাঁকাতে উইল জ্যাকসের লাগে মোট ৫০ বল। অর্থাৎ পরের ফিফটি করতে উইল জ্যাকস খরচ করেন কেবল ১৯ বল।


শেষ পর্যন্ত কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের ইনিংস থামে ৩ উইকেটে ২৩৯ রানে। যা যৌথভাবে বিপিএলের সর্বোচ্চ সংগ্রহ। এর আগে ২০১৯ সালের আসরে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের বিপক্ষে এই মাঠেই সমান ২৩৯ রান করেছিল রংপুর রাইডার্স।


আজ মইন আলি ২৩ বলে ফিফটি হাঁকিয়ে থাকেন অপরাজিত, এটিই ছিল এবারের বিপিএলে মইনের প্রথম ম্যাচ। বিপিএলে নিজের তৃতীয় ম্যাচে নামা উইল জ্যাকস ৫৩ বলে নামের পাশে ১০৮ রান নিয়ে মাঠ ছাড়েন। তার এই ইনিংসে ছিল ১০ ছক্কা ও ৫ চার।


সূত্রঃ ক্রিকেট৯৭