নামিবিয়ার সংগ্রামের গল্প শুনলে অবাক হবেন আপনিও!

ক্রিকেট দুনিয়া 23 Oct 2021 at 12:35pm 603
Googleplus Pint
নামিবিয়ার সংগ্রামের গল্প শুনলে অবাক হবেন আপনিও!

আফ্রিকার নির্জন এই দেশটির ক্রিকেট সাফল্য সত্যিই মন্ত্রমুগ্ধ করেছে পুরো ক্রিকেটবিশ্বকে। মাত্র ২৫ লক্ষ মানুষের একটি দেশ নামিবিয়া। যেখানে ৯ টি ক্রিকেট স্টেডিয়াম, ৫ টি ক্রিকেট ক্লাব এবং ১৬ জন চুক্তিবদ্ধ খেলোয়াড় আছেন। অদম্য ইচ্ছাশক্তি আর কঠোর পরিশ্রমে প্রথমবার খেলতে এসেই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার-১২ জায়গা করে নিলো দেশটি।


টি-২০ বিশ্বকাপ জার্নিতে নামিবিয়া তাদের প্রথম-প্রধান টুর্নামেন্ট ম্যাচ জিতেছে এবং আইসিসির একটি পূর্ণ সদস্য দলকে পরাজিত করেছে। শুধু তাই নয়, ক্রিকেট বিশ্বের পরাশক্তিদের সাথে পরবর্তী তিন সপ্তাহের মাঠ ভাগাভাগি করবে তারা। এছাড়াও ২০২২ টি -টোয়েন্টি বিশ্বকাপেও সরাসরিভাবে নিজেদের স্থান নিশ্চিত করেছে দলটি।


আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে জয়ের পরে নামিবিয়ার কোচ পিয়েরে ডি ব্রুইন বলেছেন, “এটি একটি স্বপ্ন যা সত্যি হয়েছে। এই খেলোয়াড়রা ছিল ছয় এবং সাত বছর বয়সী ছেলে। বাচ্চা থেকেই ভারত ও পাকিস্তানের মতো দলের বিপক্ষে খেলার স্বপ্ন দেখছিল। খুব ভালো লাগছে যে, অবশেষে সেই স্বপ্ন সত্যি হয়েছে।”


নামিবিয়ার কোচ আরও বলেন, ”আমাদের ছেলেরা টিভির পর্দায় তাদের প্রিয় ক্রিকেটারদের দেখতো আর ভাবতো তারাও একদিন টিভিতে নিজেদের দেখাতে পারবে। আজ সে স্বপ্ন সত্যি হয়েছে এবং আমার আনন্দ প্রকাশের কোনো ভাষা নেই। সত্যিই খুব ভালো লাগছে। আমরা বোর্ড ততোটা স্বচ্ছল ছিলোনা, আমরা অনেক সংগ্রাম ও কষ্ট করেছি। আর আজকে আমরা সফল।”


আইরিশদের হারিয়ে মূলপর্বে ওঠার পর নামিবিয়ার অধিনায়ক গেরহার্ড ইরাসমাস বলেন, “এ জয় আমাদের জন্য মাইলফলক। আমাদের ছোট দেশ, অল্পসংখ্যক মানুষ ক্রিকেট খেলে। এ জয়ের পর আমাদের দেশের তরুণরা আরও বেশি ক্রিকেটে মনোযোগী হবেন। দেশে ক্রিকেটের উন্মাদনা বেড়ে যাবে।”


তিনি আরও বলেন, “এ ম্যাচে আমরা খুব চাপের মধ্যেই ছিলাম। তবে আমাদের দলের সিনিয়র ক্রিকেটারদের সঙ্গে এ নিয়ে আলাপ-আলোচনা করেছি। ডেভিড ভিসা ও আমি শেষ দিকে চাপ সামলিয়ে খেলার চেষ্টা করেছি। আশা করছি আমরা মূলপর্বেও ভালো কিছু করতে পারব।”


অবিশ্বাস্য হলেও সত্যি যে, দুই বছর আগে নামিবিয়ার জাতীয় পুরুষ দলের মাত্র তিনজন চুক্তিবদ্ধ খেলোয়াড় ছিল। ২০১৯ সালের এপ্রিলে যখন তারা ওডিআই স্ট্যাটাস পায়, তখন তারা আরও ১৩ ক্রিকেটারকে চুক্তিবদ্ধ করে। সেখানে এখনও কোনো আন্তর্জাতিক স্টেডিয়াম নেই তাই হোম ম্যাচ খেলার উপায়ও নেই।


ক্রিকেটবিশ্বে নামিবিয়া যে নতুন সূচনা তৈরী করেছে তা চির স্বরণীয় রূপকথার প্রতিচ্ছবি। এভাবেই হয়তো তারা নিজেদেরকে ক্রিকেটবিশ্বের অন্যতম পরাশক্তিত্র রূপান্তরিত করতে সক্ষম হবে বলে বিশ্বাস ক্রিকেটভক্তদের। - স্পোর্টসজোন২৪

Googleplus Pint
Like - Dislike Votes 0 - Rating 0 of 10

পাঠকের মন্তব্য (0)