নিসর্গের আমন্ত্রণে যেতে পারেন ছেঁড়াদ্বীপ!

দেখা হয় নাই April 29, 2016 1,233
নিসর্গের আমন্ত্রণে যেতে পারেন ছেঁড়াদ্বীপ!

ব্যস্ততার আষ্টেপৃষ্টে যে জীবন বাঁধা, তাকে একটুখানি স্বস্তি দেয়া কি উচিৎ নয়। একটুখানি হাঁফ ছেড়ে বাঁচতে নিসর্গের টানে যেতে পারেন ছেঁড়াদ্বীপে। সেন্টমার্টিনের দক্ষিণে বিচ্ছিন্ন দ্বীপটির প্রবাল পাথর ও নির্জনতা কাছে টানে পর্যটকদের। তাই এখানে দিন দিন বাড়ছে পর্যটকের সংখ্যা। পর্যটকরাও মুগ্ধ, দ্বীপের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য দেখে।


প্রায় তিন বর্গকিলোমিটার আয়তনের এ দ্বীপে চারপাশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে পাথর, ঝিনুক, শামুকের খোলস, চুনাপাথর। স্বচ্ছ পানির উত্তাল স্রোতের আঘাতে এসব পাথরের গায়ে খচিত হয়েছে বৈচিত্র্যময় সব নকশা। যা আকর্ষণ করে পর্যটকদের। তাই সেন্টমার্টিন থেকে ট্রলারে করে আধঘণ্টার পথ পাড়ি দিয়ে অনেকেই ছুটে যান নির্জন এই দ্বীপে।


মূলত জোয়ারের সময় সেন্টমার্টিন থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় বলে এটির নাম হয়েছে ছেঁড়াদ্বীপ। এটি দেশের সর্ব দক্ষিণের শেষ ভূখণ্ড। নীল জলরাশির মাঝখানে প্রবাল পাথরের তৈরি দ্বীপটি।


জোয়ারের সময় পানিতে তলিয়ে যায় ছেঁড়াদিয়ার বড় একটি অংশ। ফলে এখনও গড়ে ওঠেনি কোনো জনবসতি। তাই, এখানে পর্যটন সুবিধা গড়ে তোলার ওপর জোর দিলেন বেড়াতে আসা পর্যটকরা।


নানা প্রজাতির সামুদ্রিক পাখির আবাসস্থলও ছেঁড়াদ্বীপ। এছাড়া কাঁকড়া, শামুক, ঝিনুকসহ প্রায় ২শ' প্রজাতির সামুদ্রিক জীবের উপস্থিতি আছে অনিন্দ্য সুন্দর এই দ্বীপে।