দক্ষিণ আফ্রিকাকে হোয়াইটওয়াশ করল ইংল্যান্ড

ক্রিকেট দুনিয়া 2nd Dec 20 at 10:16am 424
Googleplus Pint
দক্ষিণ আফ্রিকাকে হোয়াইটওয়াশ করল ইংল্যান্ড

ঘরের মাঠে ইংল্যান্ডের কাছে তৃতীয় টি-টোয়েন্টিতেও হেরে হোয়াইটওয়াশ হলো দক্ষিণ আফ্রিকা। শেষ ম্যাচটিতে ইংল্যান্ডকে রেকর্ড রান তাড়া করার লক্ষ্য ছুড়ে দিলেও ডেভিড মালান ও জস বাটলারের অনবদ্য ব্যাটিংয়ে ইতিহাস গড়ে প্রোটিয়াদের ৯ উইকেটে হারায় ইংলিশরা। তবে দল জিতলেও ১ রানের আফসোস নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় ৯৯ রানে অপরাজিত থাকা ডেভিড মালানকে।


এদিন আগে ব্যাট করতে নেমে ফন ডার ডাসেন ও দু প্লেসির অপরাজিত ফিফটিতে ৩ উইকেটে ১৯১ রান করে দক্ষিণ আফ্রিকা। মালান ও বাটলারের ফিফটিতে হেসেখেলে ১৪ বল বাকি থাকতে লক্ষ্য ছুঁয়ে ফেলে ওয়েন মর্গ্যানের দল।


লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ইনিংসের চতুৃ্র্থ ওভারে জেসন রয়কে হারায় ইংলিশরা। নর্টজের বলে ফেরেন রয়। তবে এরপর আর কোন বিপদ হতে দেননি বাটলার ও মালান। বিশ্বের নাম্বার ওয়ান টি-টোয়েন্টির ব্যাটসম্যান মালান নেমেই ঝড় তোলেন। মাত্র ২২ বলে তুলে নেন ফিফটি।


অন্যদিকে জস বাটলারও দারুণভাবে জুটি বেঁধে ৩৪ বলে ফিফটি পূরণ করেন। ঝড়ো ব্যাটিংয়ে নির্ধারিত ওভারের আগেই জয়ের আভাস পায় ইংল্যান্ড। দারুণ ব্যাটিংয়ে ব্যক্তিগত শতকের দিকে এগুতে থাকেন মালান। সুযোগও পেয়েছিলেন সেঞ্চুরি করার।


ইনিংসের ১৮ তম ওভারে প্রথম বলে বাটলার সিঙ্গেল নিলে স্ট্রাইক পান মালান। সে সময় দলের জয়ের জন্য দরকার ছিল ১২ রান। দ্বিতীয় বলে ছক্কা হাঁকান মালান। পরের বল ওয়াইড তিলে তৃতীয় বলে বাউন্ডারি হাঁকান।


এরপর দলের জন্য প্রয়োজন জিততে ছিল ১ রান আর মালান ছিলেন ৯৮ রানে অপরাজিত। কিন্তু পরের বলে অনেকটা নিজের রান সম্পর্কে না জেনে সিঙ্গেল নেন মালান। আর তাতেই ইংল্যান্ড জিতলেও ৯৯ রানে অপরাজিত থাকেন তিনি।


মালানকে দারুণ সঙ্গ দেওয়া বাটলার অপরাজিত থাকেন ৬৭ (৪৬)* রানে। আর দুজনের অবিচ্ছিন্ন দ্বিতীয় উইকেটে ১৬৭ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটি দ্বিতীয় উইকেটে সর্বোচ্চ রানের বিশ্বরেকর্ডে জায়গা করে নেয়। আগের রেকর্ড ছিল শ্রীলঙ্কার মাহেলা জয়াবর্ধনে ও কুমার সাঙ্গাকারার ১৬৬, ২০১০ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে।


এর আগে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে দ্রুতই ফেরেন কুইন্টন ডি কক। ভালো শুরুটা বড় করতে পারেননি আরেক ওপেনার টেম্বা বাভুমা। দুই ছক্কা ও এক চারে ২৬ রান করা ডানহাতি এই ব্যাটসম্যানকে থামানোর পর রিজ হেনড্রিকসকে দ্রুত ফেরান বেন স্টোকস।


দশম ওভারে দক্ষিণ আফ্রিকার স্কোর তখন ৩ উইকেটে ৬৪। সেখান থেকে দলকে দুইশ রানের কাছে নিয়ে যান ফন ডার ডাসেন ও দু প্লেসি। অবিচ্ছিন্ন তৃতীয় উইকেটে দুই জনে গড়েন ১২৭ রানের জুটি। যা টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে তৃতীয় উইকেট জুটিতে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান।


জুটিতে অগ্রণী ছিলেন ফন ডার ডাসেন। ২৩ বলে পঞ্চাশ স্পর্শ করেন তিনি। শেষ পর্যর্ত ৩২ বলে পাঁচটি করে ছক্কা ও চারে ৭৪ রান করেন ফন। অন্যদিকে সিরিজে দ্বিতীয় ফিফটি পাওয়া দু প্লেসি ৩৭ বলে তিন ছক্কা ও পাঁচ চারে করেন ৫২ রান।


সংক্ষিপ্ত স্কোর:


দক্ষিণ আফ্রিকা: ১৯১/৩ (২০ ওভারে)

ফন ডার ডাসেন ৭৪*, প্লেসি ৫২*

স্টোকস ২/২৬, জর্ডান ১/৪২


ইংল্যান্ড: ১৯২/১ (১৭.৪ ওভারে)

মালান ৯৯*, বাটলার ৬৭*

নর্টজে ১/৩৭


ফল: ইংল্যান্ড ৯ উইকেটে জয়ী


সিরিজ: ৩ ম্যাচের সিরিজে ৩-০তে জয়ী ইংল্যান্ড


ম্যান অব দা ম্যাচ: ডেভিড মালান


ম্যান অব দা সিরিজ: ডেভিড মালান।


সূত্রঃ স্পোর্টসজোন২৪

Googleplus Pint
Akash Khan
Manager
Like - Dislike Votes 0 - Rating 0 of 10

পাঠকের মন্তব্য (0)