বিপদ মুক্তির জন্য কোন আমল করব?

ইসলামিক শিক্ষা 15th Mar 18 at 4:47pm 2,837
Googleplus Pint
বিপদ মুক্তির জন্য কোন আমল করব?
প্রশ্ন : আমি যতটুকু পারি আল্লাহর দরবারে নফল নামাজ, কোরআন শরীফ সঠিকভাবে পড়ার চেষ্টা করি। তারপরও আল্লাহ আমাকে একটার পর একটা বিপদের সম্মুখীন করছেন। আর কী করলে ভালো হবে- আমাকে একটু জানাবেন।

উত্তর : বোন আপনি আসলে ইবাদতের ক্ষেত্রে ভালো কথাই বলেছেন, আপনি নফল ইবাদত, আল্লাহরাব্বুল আলামিনের যেসব আজকার আছে সেগুলো করেন, কিন্তু আসল কাজটাই করেন না। প্রথম যে জিনিসটি আল্লাহ তায়ালা বান্দাদের করতে বলেছেন সেটিই আপনি করেননি, সেটি হচ্ছে ধৈর্য ধারণ। ‘ধৈর্যের মাধ্যমে আল্লাহতায়ালার সাহায্য গ্রহণ করুন।’

আপনার বক্তব্য থেকে বোঝা যাচ্ছে, আপনার ধৈর্য নেই। যদি ধৈর্য থাকত তাহলে আপনি এই ধরনের বক্তব্য দিতে পারতেন না। এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। এ জন্যই রাসুল (সা.) একটি হাদিসের মধ্যে বলেছেন, ‘ধৈর্য হচ্ছে ইমানের অর্ধেক বিষয়।’ তাই আপনি ধৈর্য ধারনের চেষ্টা করুন। এটি হচ্ছে প্রথম পয়েন্ট যেটি আপনার বক্তব্যের মধ্যে আমরা ত্রুটি পেয়েছি।

দ্বিতীয় বিষয় হচ্ছে, আল্লাহরাব্বুল আলামিনের কাছে যা চাইবেন, যা করবেন, সেটি আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য করবেন, বিপদ-আপদ থেকে মুক্তির জন্য নয়। এখানে বান্দার ভুল থেকে যায়। আমরা অনেকেই মনে করে থাকি যে, শুধু বিপদ-আপদ থেকে বাঁচার জন্যই আল্লাহতায়ালার ইবাদত করছি বা জিকির-আজকার করছি বা নফল ইবাদতগুলো করছি। ইবাদতের মৌলিক বিষয় হচ্ছে, আল্লাহতায়ালার জন্য ইবাদত করতে হবে।

এটি মক্কার মুশরিকদের কাজ ছিল। তারা যখন কোনো বিপদ-আপদে পড়ত, তখন আল্লাহতায়ালাকে ডাকত। যখন বিপদ থেকে মুক্ত হয়ে যেত তখন আল্লাহতায়ালাকে ভুলে যেত। এই জন্য ইবাদতের মৌলিক বিষয় হচ্ছে আপনি কঠিন অবস্থায় এবং ভালো অবস্থায় দুই অবস্থাতেই আল্লাহ সুবহানাহুতায়ালার সত্যিকার ইবাদত করবেন। ফলে আপনি কঠিন অবস্থায় পড়লে দেখবেন সেখানে আল্লাহ আপনাকে সাহায্য করবেন।

যে দুটি বিষয় এখানে বলা হয়েছে, সেগুলো খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। এই বিষয়গুলো ভালোভাবে উপলব্ধি করার চেষ্টা করুন, তাহলে ইনশা আল্লাহ দেখবেন আল্লাহর তরফ থেকে সাহায্য আসবে। তারপরও আল্লাহর বান্দা যেকোনো সময় আল্লাহতায়ালার কাছে সাহায্যের জন্য দোয়া করতে পারেন।

সূত্রঃ আপনার জিঙ্গাসা, এনটিভি অনলাইন
Googleplus Pint
Mizu Ahmed
Manager
Like - Dislike Votes 110 - Rating 4 of 10

পাঠকের মন্তব্য (0)