কম দামে দেশে তৈরি দ্বিতীয় ফোন আনলো ওয়ালটন

মোবাইল ফোন রিভিউ January 15, 2018 1,918
কম দামে দেশে তৈরি দ্বিতীয় ফোন আনলো ওয়ালটন

ওয়ালটন বাজারে নিয়ে এলো বাংলাদেশে তৈরি দ্বিতীয় স্মার্টফোন। মডেল ‘প্রিমো ই৮এস’। ১৫ জানুয়ারি সোমবার থেকে দেশের সব ওয়ালটন প্লাজা, মোবাইল ফোন ব্র্যান্ড এবং রিটেইল আউটলেটে মিলছে ‘মেইড ইন বাংলাদেশ’ ট্যাগযুক্ত ‘প্রিমো ই৮এস’ স্মার্টফোনটি। ফোনটির মূল্য মাত্র ৩ হাজার ৯৯৯ টাকা।


এর আগে গত ১০ ডিসেম্বর দেশে তৈরি প্রথম স্মার্টফোন বাজারে ছাড়ে ওয়ালটন। সেটি ছিল ‘প্রিমো ই৮আই’ মডেলের ফোন।


বাজারে আসার পরই প্রথম দেশীয় স্মার্টফোন ক্রেতাদের মাঝে ব্যাপক সাড়া ফেলে। এরই ধারাবাহিকতায় একমাসের ব্যবধানে দ্বিতীয় স্মার্টফোনটি বাজারে ছেড়েছে জনপ্রিয় এই দেশীয় ব্র্যান্ড।


সোমবার ঢাকার অদূরে সাভার গলফ ক্লাবে ওয়ালটন মোবাইলের রিটেলইলারদের নিয়ে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে দেশে তৈরি দ্বিতীয় স্মার্টফোনটির মোড়ক উন্মোচন করা হয়।


অনুষ্ঠানে ওয়ালটন সেল্যুলার ফোন ডিভিশন (মার্কেটিং) প্রধান আসিফুর রহমান খান জানান, ‘প্রিমো ই৮এস’ স্মার্টফোনটিও তৈরি হয়েছে গাজীপুরের চন্দ্রায় ওয়ালটনের নিজস্ব কারখানায়।


এটি মূলত ‘প্রিমো ই৮আই’ মডেলের উন্নত সংস্করণ। নতুন মডেলে বাড়ানো হয়েছে র‌্যাম এবং ফ্রন্ট ক্যামেরার পিক্সেল। অপারেটিং সিস্টেম আপডেট করে দেয়া হয়েছে অ্যানড্রয়েড নুগাট ৭.০। পর্দায় ব্যবহার করা হয়েছে ২.৫ডি গ্লাস।


স্মার্টফোনটির পর্দা ৪ দশমিক ৫ ইঞ্চির। এতে রয়েছে ১.২ গিগাহার্জ গতির কোয়াড কোর প্রসেসর। ব্যবহৃত হয়েছে ১ গিগাবাইট র‌্যাম। গ্রাফিক্স হিসেবে রয়েছে মালি-৪০০। এর অভ্যন্তরীণ মেমোরি ৮ গিগাবাইটের। যা মাইক্রো এসডি কার্ডের মাধ্যমে ৩২ গিগাবাইট পর্যন্ত বাড়ানো যাবে।


এই স্মার্টফোনের পেছনে রয়েছে এলইডি ফ্ল্যাশযুক্ত ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। সামনের ক্যামেরাও ৫ মেগাপিক্সেলের। উভয় ক্যামেরায় ধারণ করা যাবে এইচডি মানের ভিডিও।


একই সঙ্গে ফোনটি দিয়ে থ্রিজি ভিডিও কল করা যাবে। ফোনটির পাওয়ার ব্যাকআপের জন্য রয়েছে ১৬০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার লি-আয়ন ব্যাটারি। থ্রিজি সমর্থিত ফোনটিতে একসঙ্গে ২টি সিম কার্ড ব্যবহার করা যাবে।


আকর্ষণীয় ডিজাইনের স্মার্টফোনটি কালো, সোনালি এবং ধূসর রঙে বাজারে ছাড়া হয়েছে।


এই ফোনের কানেকটিভিটি হিসেবে রয়েছে ওয়াইফাই, ব্লুটুথ ভার্সন ৪, মাইক্রো ইউএসবি ভার্সন ২, ল্যান হটস্পট এবং ওটিএ।


পজিশনিং সেন্সর হিসেবে রয়েছে এ-জিপিএস ও প্রক্সিমিটি। মোশন সেন্সর হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছে অ্যাক্সিলেরোমিটার (থ্রিডি)। মাল্টিমিডিয়া হিসেবে রয়েছে এইচডি ভিডিও প্লেব্যাক এবং রেকর্ডিংসহ এফএম রেডিও।


বাংলাদেশে তৈরি এই স্মার্টফোনে ক্রেতারা পাবেন বিশেষ রিপ্লেসমেন্ট সুবিধা। স্মার্টফোন ক্রয়ের ৩০ দিনের মধ্যে যেকোনো ধরনের ত্রুটিতে সাথে সাথে ফোনটি পাল্টে ক্রেতাকে নতুন আরেকটি ফোন দেয়া হবে।


এছাড়াও, ১০১ দিনের মধ্যে প্রায়োরিটি বেসিসে ৪৮ ঘন্টার মধ্যে ক্রেতাকে বিক্রয়োত্তর সেবা দেয়া হবে।


দেশে তৈরি দ্বিতীয় স্মার্টফোনের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে আসিফুর রহমান খান বলেন, ‘ক্রেতাদের ক্রয়ক্ষমতার কথা বিবেচনায় নিয়ে প্রাথমিক অবস্থায় আমরা প্রয়োজনীয় ফিচারসমৃদ্ধ সাশ্রয়ী মূল্যের স্মার্টফোন তৈরি করছি। পর্যায়ক্রমে আমরা আরো বেশি ফিচারসমৃদ্ধ ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন উৎপাদনে যাবো। আমরা আশা করছি খুব শিগগিরই দেশে তৈরি ফোরজি সমর্থিত স্মার্টফোন ক্রেতাদের হাতে তুলে দিতে পারবো।’


মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ওয়ালটনের ফার্স্ট সিনিয়র ডেপুটি ডিরেক্টর মাহমুদুল হাসান, ডেপুটি ডিরেক্টর মাহবুব মিল্টন, রিজিওনাল সেলস ম্যানেজার ইকরামুজ্জামান খান এবং ডিস্ট্রিবিউটর ইউনিক টেলিকমের স্বত্ত্বাধিকারী আহসান হাবিব রিগান।


উল্লেখ্য, দেশের সব ওয়ালটন প্লাজা এবং ব্র্যান্ড ও রিটেইল আউটলেটে ০% ইন্টারেস্টে ৬ মাসের ইএমআই সুবিধায় কেনা যায় সব মডেলের ওয়ালটন স্মার্টফোন। একই সঙ্গে ১২ মাসের কিস্তি সুবিধায়ও কেনার সুযোগ থাকছে। সর্বোত্তম বিক্রয়োত্তর সেবার জন্য রয়েছে দেশব্যাপী বিস্তৃত সার্ভিস নেটওয়ার্ক।