ভ্রমণ : যে লেকগুলো দেখলে এখনই পাকিস্তান যেতে মন চাইবে

দেখা হয় নাই July 7, 2017 1,722
ভ্রমণ : যে লেকগুলো দেখলে এখনই পাকিস্তান যেতে মন চাইবে

পাকিস্তান মানেই যেন রাজনৈতিক অস্থিরতা আর জঙ্গিদের ভয়। আবার পাকিস্তানের ক্রিকেট সবাইকে কী আনন্দটাই না দেয়! তবে এ এক অন্য পাকিস্তানের কথা আপনাদের জানানো হলো। পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দরতম হ্রদগুলোর বেশ কয়েকটি রয়েছে পাকিস্তানে। তবে সুন্দর বলেই নয়, পশ্চিম-এশিয়ার সবচেয়ে উচুঁ বা বিশাল লেকের অবস্থানও সেখানে। ১০টি এমন সুন্দর লেকের ছবি দেখলে আপনার মাথা ঘুরে যাবে। এখানে দেখুন, জেনে নিন কিছু তথ্যও।


১০. কিনঝার লেক

পাকিস্তানের দ্বিতীয় বিশালতম ও স্বচ্ছ জলের লেক এটি। এই হ্রদকে স্থানীয়রা কালরি লেকও বলে থাকে। করাচি থেকে প্রায় ১২২ কিমি দুরত্বে, সিন্ধের থাট্টা জেলা অবস্থিত এই লেক। থাট্টা, করাচি, হায়দরাবাদ থেকে স্থানীয়রা তো বটেই, বহু পর্যটকের কাছেই জনপ্রিয় এই লেক। পিকনিক, সাঁতার কাটা, ফিশিং ও বোটিং-এর ব্যবস্থা রয়েছে এখানে। লেকের মধ্যস্থলে বিশিষ্ট সিন্ধি লেখক নূরি জাম তামাচির সমাধি রয়েছে।


৯. বানজোসা লেক

এটি একটি কৃত্রিম লেক। তবে আজাদ কাশ্মীরের বাঘ জেলার রাওয়ালকোট শহরের কাছে এই লেক অত্যন্ত জনপ্রিয়। টুরিস্টদের খুব পছন্দের এই বানজোসা লেক। সমুদ্রতল থেকে ৬,৪৯৯ ফুট উচুঁতে তৈরি এই লেকের চারিধারে রয়েছে পাইন গাছের সারি। সবুজ পাহারের মাঝে স্বচ্ছ লেকের সৌন্দর্যই আলাদা।


৮. কারামবার লেক

বিশ্বের ৩১তম ও পাকিস্তানের দ্বিতীয় উচ্চতম লেক হল এটি। গিলগিট, বাল্টিস্তান ও কেপিকে-র মাঝে অবস্থিত পৃথিবীর সর্বোচ্চ জৈবিকভাবে সক্রিয় হ্রদ এটিই। সমুদ্র তল থেকে প্রায় ১৪,১২১ ফিট উচুঁতে রয়েছে কারামবার লেক। উপত্যকায় এই গভীরতম হ্রদকে স্থানীয়রা কুরুমবার লেক বলে ডাকেন।


৭. রাস লেক

এই হ্রদের ছবি দেখেই মুগ্ধ হয়ে যেতে হয়। পাকিস্তানের উচ্চতম লেক হল এই রাস হ্রদ। লাঘার উপত্যকার গোল্ডেন পিক, মিয়ার পিক ও বিশ্বের ২৫তম সর্বোচ্চ হ্রদ অ্যালপাইন লেকের থেকে প্রায় ৫,০৯৮ মিটার দূরত্বে অবস্থিত রাস পারি পিক। সেখানেই রয়েছে অপূর্ব এই হ্রদটি।


৬. সাতপারা লেক

পাকিস্তানের আরেকটি অপূর্ব সুন্দর একটি হ্রদ হল এটি। বাল্তিস্তানের গিলগিটে রয়েছে সাতপারা লেক। স্কার্দুর কাছে এই প্রাকৃতিক লেকের বিস্তার প্রায় ২.৫ কিমি। এখানকার সবচেয়ে বড় ও স্বচ্ছ জলের হ্রদগুলির মধ্যে এটি অন্যতম। স্কার্দু উপত্যকায় জল সরবরাহের জন্য এই হ্রদের জল ব্যবহার করা হয়।


৫. দুদিপাতসার লেক

মনসেহরা জেলার কাঘান উপত্যকার একদম উত্তরে অবস্থিত এই হ্রদকে স্থানীয়রা দুদিপাত লেক নামে ডাকেন। পাকিস্তানের অপূর্ব হ্রদগুলোর মধ্যে অন্যতম দুদিপাতসার হ্রদটি লুলুসার-দুদিপাতসার ন্যাশানাল পার্কের বরফাবৃত পাহাড়গুলো দিয়ে ঘেরা। হ্রদটির চারিদিকের পাহাড় থেকে দুধসাদা বরফ নেমে আসছে বলেই লেকের নাম হয়েছে দুদিপাতসার। দুদি'র অর্থ হল সাদা, পাত-এর অর্থ পাহাড় বা পর্বত এবং সার-এর অর্থ হ্রদ। জুন থেকে সেপ্টেম্বর, ৪ মাস গ্রীষ্মের মধ্যে এই লেকের জল একেবারে কাঁচের মতো স্বচ্ছ হয়ে যায়। সেই সময়েই বহু পর্যটক প্রাকৃতিক সৌন্দর্য দেখতে ছুটে আসেন। নারান থেকে এক ঘন্টার রাস্তা বেসাল থেকে পুরো হ্রদটাই দেখা যায়। ফলে ট্যুরিস্টরা জিপ, প্রাইভেট কার ও বাইকে করে বেসাল চলে আসেন।


৪. শেওসার লেক

দেওসাই ন্যাশানাল পার্কের কথা নিশ্চয়ই শুনেছেন। পৃথিবীর সুন্দরতম বললেও ভুল হবে, দুরন্ত সব স্থানগুলোর মধ্যে দেওসাই অন্যতম। তিব্বত মালভূমির ২য় সর্বোচ্চ মালভূমিও এটি। এখানে প্রচুর নানা রঙের ফুল হয়। বেড অফ ফ্লাওয়ার নামে খ্যাত এই মালভূমির গিলগিট-বালতিস্তানের দেওসাই ন্যাশানাল পার্কে অবস্থিত শেওসার হ্রদ।


৩. রাত্তি গালি লেক

যারা ভূ-পর্যটক, তাদের কাছে এই লেক স্বপ্নের। আপনিও এই লেকের প্রেমে মজে যাবেন ছবি দেখেই। স্বপ্নের লেকটি স্থানীয়দের কাছে বিখ্যাত লেখক মিস্টার মুস্তানসার হুসেইন তারার নামে বেশি পরিচিত। আজাদ কাশ্মীরের অন্তর্গত নীলম উপত্যকায় অবস্থিত এই সুন্দর হ্রদটি। সমুদ্রতল থেকে ১২,১৩০ ফিট উচুঁতে হ্রদে যেতে গেলে ১৯ কিমি ট্রেক করে বেস ক্যাম্প দোয়ারিয়ান-এ যেতে হবে।


২. শাঙ্গারিলা লেক

পাকিস্তানের সবচাইতে সুন্দর লেকগুলোর মধ্যে এটি ২য় স্থান দখল করে নিয়েছে। নেওয়ারই মতোন। স্কার্দু শহর থেকে ২০ মিনিটের পথ ড্রাইভ করলেই পৌঁছে যাওয়া যাবে এখানে। স্থানীয়রা একে লোয়ার কাচুরা লেক নামে ডেকে থাকেন। জনপ্রিয় টুরিস্ট স্পটে রয়েছে থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থা। রয়েছে শাঙ্গারিলা রিসর্টও। শাঙ্গারিলার চিনা অর্থ হল 'পৃথিবীর স্বর্গ'।


১. সৈফুল মুলুক লেক

পাকিস্তানের ১০টি সবচেয়ে সুন্দর হ্রদগুলোর মধ্যে এটির নাম সবার প্রথমে। কাঘান উপতক্যার উত্তরের শেষপ্রান্তে নারান শহরের কাছেই এই হ্রদ। সমুদ্রতল থেকে ১০,৫৭৮ ফিট উচুঁতে অবস্থিত। আর এটিই পাকিস্তানের সর্বোচ্চ লেক। বিখ্যাত সুফি লেখক মিয়ান মুহম্মদ বখশের সৈফুল মুলুক নামে এক ফেয়ারি টেলসের বইয়ের নাম থেকেই এই হ্রদের নামকরণ। পূর্ণিমার দিনে এই হ্রদের মনোরম দৃশ্য আপনাকে মোহিত করবে তো বটেই, এমন অভিজ্ঞতা সঞ্চয় করাটাও ভাগ্য