সুন্দর ত্বকের জন্য কার্যকরী উপাদান কোকোনাট মিল্ক!

রূপচর্চা/বিউটি-টিপস April 24, 2017 528
সুন্দর ত্বকের জন্য কার্যকরী উপাদান কোকোনাট মিল্ক!

সুস্থ উজ্জ্বল ত্বকের জন্য সময়ের পরিক্রমায় হাজারো স্কিন কেয়ার পণ্য এলেও ত্বকের যত্নে নারকেলের দুধ বা কোকোনাট মিল্কের উপকারিতার বিষয়ে মানুষের বিশ্বাস আজও অপরিবর্তিত রয়েছে। এমনকি এখনও ত্বকের যত্নে এটি বিশ্বব্যাপী সর্বাধিক ব্যবহৃত।


কোকোনাট মিল্কে আছে নানাবিধ পুষ্টিকর উপাদান যেমন- ভিটামিন এ এবং সি, ক্যালসিয়াম, আয়রন এবং ন্যাচারাল প্রোটিন যা ত্বকে পুষ্টি যোগায় এবং ত্বককে রাখে কোমল ও উজ্জ্বল।


উজ্জ্বল ত্বক পেতে নারকেলের দুধের উপকারিতা জেনে রাখুন:


১। ব্রণ প্রতিরোধ করে: ত্বক তৈলাক্ত হলে বা ব্রণর সমস্যা থাকলে, ক্লিনজ়ার হিসেবে কোকোনাট মিল্ক ব্যবহার করুন। এর মধ্যে থাকা অ্যান্টিব্যাক্টেরিয়াল উপাদান ব্রণ সমস্যা দূর করে।


২। ত্বক ময়েশ্চারাইজ়ড করে: ত্বকের সঠিক ময়েশ্চারাইজ়ার জোগাতে নারকেল তেলের মধ্যে প্রয়োজনীয় সব উপাদান রয়েছে। নারকেলের দুধ নিয়ে স্নানও ত্বকের জন্য বেশ উপকারী। হালকা গরম স্নানের জলে অর্ধেক কাপ গোলাপ জল ও ১ কাপ নারকেল দুধ মিশিয়ে স্নান করে করুন।


৩। মেকআপ রিমুভার: মেকআপ তুলতে একটি কটন প্যাডে সামান্য অলিভ অয়েল এবং কোকোনাট মিল্ক নিন। মেকআপ সহজেই উঠে যাবে এর সাহায্যে। তাছাড়াও ত্বকে গভীর থেকে পুষ্টি জোগায়।


৪। ফেশিয়াল স্ক্রাব: ত্বক এক্সফলিয়েট করতে কোকোনাট মিল্ক ফেশিয়াল স্ক্রাব হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন।


৫। ট্যান দূর করে: নারকেলের দুধের মধ্যে থাকা অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি উপাদান ট্যান দূর করতে কার্যকরী উপাদান।


৬। শুষ্ক ত্বকের যত্নে: নারকেল দুধে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন ও ফ্যাটি এসিড যা আমাদের ত্বকের বলিরেখা দূর করতে সাহায্য করে। এছাড়া ত্বককে মসৃণ করে ত্বকের আর্দ্রতা বজায় রাখে। রোদে পোড়া দাগ দূর করতেও এর জুড়ি নেই।


তাই শুধুমাত্র নারকেল দুধ দিয়ে ক্লিনজারের মতো মুখ পরিষ্কার করতে পারেন।


সূত্রঃ ফেমিনা।