ভ্রমণ : ২৪ ঘণ্টায় দিল্লি দর্শন

দেখা হয় নাই April 12, 2017 948
ভ্রমণ : ২৪ ঘণ্টায় দিল্লি দর্শন

শুধু এক দিল্লিতেই পর্যটকদের জন্য অনেকগুলো আকর্ষণীয় স্থান রয়েছে। আমাদের দেশ থেকে প্রতিবছর অসংখ্য মানুষ ভ্রমণের জন্য প্রতিবেশী দেশ ভারতকে বেছে নেন। আর সেদেশের কোন স্থান নির্বাচনের ক্ষেত্রে অনায়াসে বেছে নিতে পারেন রাজধানী দিল্লিকে।


সময় নিয়ে এখানে সেখানে ঘোরাঘুরির জন্য পরিকল্পনা করে নিতে পারবেন। কিন্তু হাতে যদি অন্তত ২৪ ঘণ্টা সময়ও থাকে, তবুও দিল্লির বেশ কিছু দারুণ স্থান দর্শন করে নিতে পারেন। এখানে একদিনে দিল্লির কোথায় যাবেন এবং কী করবেন তার সম্পর্কে কিছু টিপস দেওয়া হলো।


১. রেড ফোর্ট


এটি লাল কেল্লা নামেও পরচিতি। মুঘল সম্রাট শাহ জাহান এটি বানিয়েছিলেন ১৬৩৮-১৬৪৮ সালের মধ্যে। এই ঐতিহাসিক স্থানটি না দেখলেই নয়। আগ্রা থেকে দিল্লিতে রাজধানী স্থানান্তরের পর এটি তৈরি করেন তিনি। ইতিমধ্যে ইউনেস্কোর ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট হিসাবে তালিকাভুক্ত হয়েছে।


২. শিব মিষ্টান্ন ভাণ্ডারে সকালের নাস্তা


কুচা ঘাসি রামে অবস্থিত এই মিষ্টির দোকান। কাট্রা নিলের খুব কাছেই। এর ডানের রাস্তা দিয়েই রেড ফোর্ট যায়।


৩. পুরনো ও বিখ্যাত জালেবিওয়ালা


চাঁদনি চকের গুরুদুয়ারা সিস গঞ্জ সাহিবের উত্তরের শেষ প্রান্তে অবস্থিত এটি। বহু পুরনো ও বিখ্যাত এক মিষ্টির দোকান। এখানে মিলবে মুখরোচক জিলাপি। এমন জিলাপি হয়তো কখনও খাননি। তাই মুখটা রসে টইটুম্বর করে আসতে পারেন এখানেই।


৪. ইন্ডিয়া গেট


প্রথম বিশ্বযুদ্ধে যে সাহসী সেনারা জীবন দিয়েছিলেন তাদের স্মৃতিসৌধ হিসাবে মূলত বানানো হয়েছিল এটি। এখন ইন্ডিয়া গেট মানুষের কাছে সবচেয়ে জনপ্রিয় এক স্থান। এটি দেখে আসতে ভুলবেন না। এর ডিজাইন করেন ব্রিটিশ স্থপতি স্যার এডউইন লুটিয়েন্স।


৫. ন্যাশনাল গ্যালারি অব মডার্ন আর্ট


১৯৫০ এর দশকে এটি গড়ে তোলা হয়। আধুনিক ভারতের চিত্রকলা আর ভাস্কর্যের সেরা সংগ্রহ এখানেই মিলবে। রাজা রবি ভার্মা, রবিন্দ্রনাথ ঠাকুর, যামিনী রয়, নন্দলাল বোস এর মতো মহান শিল্পীদের চিত্রকলা রয়েছে এখানে।


৬. হুমায়ুনের সমাধিসৌধ


ইউনেস্কোর ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইটের অন্তর্ভুক্ত আরেকটি স্থান। বাগানঘেরা সমাধিস্থল। মুঘল সাম্রাজ্যের অপূর্ব স্থাপত্যকলার আরেকটি উদাহরণ এটি। তাজ মহলের আগে বানানো হয়েছিল এটাকে।


৭. হযরত নাজিমুদ্দিন আওলিয়া দরগাহ


নাজিমুদ্দিন চিশতির দরগাহটি তৈরি মার্বেল পাথরে। অসাধারণ এক স্থাপনা। মুসলমানদের পবিত্র স্থান। ১৩২৫ সালে চিশতি ইন্তেকাল করলে এটা বানানো হয়।


সূত্র: হ্যাপি ট্রিপস