সকালে ঘুম থেকে তাড়াতাড়ি ওঠার টিপস

লাইফ স্টাইল April 4, 2017 936
সকালে ঘুম থেকে তাড়াতাড়ি ওঠার টিপস

সকালে ঘুম থেকে ওঠার অভ্যাস স্বাস্থ্যের জন্য ভালো বলে আমারা সবাই জানি। কিন্তু অনেকেই এই অভ্যাসটি অনুসরণ করতে পারেন না সকালে ঘুম থেকে উঠতে পারেন না বলে। আপনি কী সকালে ঘুম থেকে ওঠার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছেন? আপনি নিশ্চয়ই বলবেন যে আপনাকে অনেক রাত জাগতে হয় বলে সকালে ঘুম থেকে উঠতে পারেন না আপনি। কিন্তু সত্যি কথাটা হচ্ছে সকালে ঘুম থেকে তাড়াতাড়ি উঠতে পারলে আপনি কাজ এবং অবসর দুটোর জন্যই অনেক বেশি সময় পাবেন। এছাড়াও আপনার স্ট্রেস ও কম হবে। তাড়াহুড়া করে কাজের জন্য তৈরি হওয়ার চেয়ে শান্তভাবে দিন শুরু করতে পারাটা অনেক ভালো। আপনার শরীরকে ঘুম থেকে বের হয়ে আসার জন্য সময় দিন এবং তারপর দিনের কাজ শুরু করুন। সকালে ঘুম থেকে তাড়াতাড়ি ওঠার কিছু টিপস জেনে নিই চলুন।


১। ঘুমকে প্রাধান্য দিন

যেকোন অজুহাতের কারণে রাতে ঘুমাতে যেতে দেরি হয় আপনার। কিন্তু চেষ্টা করুন প্রতিদিন রাতে তাড়াতাড়ি ও একই সময়ে ঘুমানোর এবং জেগে ওঠার।


২। চক্রটিকে ভাঙ্গুন

আপনি দেরিতে ঘুমাতে যান এবং ঘুম থেকে দেরিতে ওঠেন – আপনার এই ঘুম চক্রটি থেকে বের হওয়া প্রয়োজন। এর জন্য জোর করে হলেও একই সময়ে ঘুমাতে যান এবং ঘুম থেকে জেগে উঠুন। ঘুমাতে যাওয়ার আগে ১ গ্লাস উষ্ণ দুধ পান করুন, ব্যায়াম করুন। এ কাজগুলো আপানাকে তাড়াতাড়ি ঘুমাতে সাহায্য করবে।


৩। ধৈর্য ধরুন

একবার ব্যর্থ হলেই চিন্তিত হবেন না। চেষ্টাই হবে আপনার কৌশল। আপনার শরীর হয়তো নির্দিষ্ট ঘুমের ধরনের প্রতি অভ্যস্ত হয়ে গেছে, নতুন অভ্যাস তৈরি করতে কিছুটা সময়তো লাগবেই। তাই আপনার শরীরকে নতুন অভ্যাস আয়ত্তে নিতে সময় দিন। প্রথম দিনই হয়তো আপনি ব্যর্থ হবেন, কিন্তু সপ্তাহ শেষে দেখবেন যে নতুন এই অভ্যাসে অভ্যস্ত হয়ে ওঠেছে আপনার শরীর।


৪। প্রথমে একটি পদক্ষেপ নিন

আপনার লক্ষ্যে পৌঁছানোর জন্য সময় নির্ধারণ করুন এবং ছোট ছোট পদক্ষেপ নিন। প্রথম দিন আপনার নিয়মিত ঘুমানোর সময়ের চেয়ে ১৫ মিনিট পূর্বে ঘুমাতে যান এবং ১৫ মিনিট আগে ঘুম থেকে জেগে উঠোন। পরদিন ৩০ মিনিট আগে ঘুমান। এভাবে আস্তে আস্তে সময় বাড়াতে পারেন।


৫। দুপুরের তন্দ্রাকে এড়িয়ে চলুন

যদি ডাক্তারের পরামর্শ না থাকে তাহলে দুপুরে ঘুমাবেন না। কারণ দুপুরের ঘুমের কারণেই রাতে দেরিতে ঘুম আসে এবং সকালে ওঠতেও দেরি হয়। তাই দুপুরের ঘুমকে এড়িয়ে যাওয়ার জন্য দুপুরে কাজ করুন বা শখের কাজের সাথে নিজেকে সংযুক্ত করুন।


৬। সঠিক পরিবেশ তৈরি করুন

রাতে ঘুমানোর পূর্বে ক্যামোমিল বা ল্যাভেন্ডার এর চা পান করুন বা বই পড়ুন যা আপনাকে শান্ত করতে সাহায্য করবে। প্রতিরাতে এর পুনরাবৃত্তি করুন। সময়ের সাথে সাথে আপনার শরীর এই নিয়মের সাথে অভ্যস্ত হয়ে উঠবে এবং আপনি নিজেই বুঝতে পারবেন কখন আপনার বই বন্ধ করা উচিৎ এবং আপনার ঘুমও চলে আসবে। আপনার ঘরের পরিবেশ ও ঘুম আসার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। যদি আপনার শোয়ার ঘরটি পরিষ্কার-পরিছন্ন থাকে তাহলে আপনার মন শিথিল থাকবে এবং দ্রুত ঘুম চলে আসবে।


৭। সকালের কাজ ঠিক করুন

সকালে করতে হবে এমন কিছু কাজের তালিকা করুন। এর ফলে আপনার ঘুম থেকে ওঠার প্রেরণা তৈরি হবে।