দীর্ঘায়ু পেতে যা করবেন

সাস্থ্যকথা/হেলথ-টিপস April 3, 2017 577
দীর্ঘায়ু পেতে যা করবেন

প্রতিদিন রান্নার কাজে হলুদ ছাড়া কি চলে। রান্নার স্বাদ ও রং সঠিক রাখতে হলুদ চাই-ই চাই। মেয়েদের রূপচর্চায়ও হলুদের বেশ কদর আছে। শুধু তাই নয় হলুদে বহু রোগমুক্তির ক্ষমতাও রয়েছে। তাই তো নানাবিধ রোগের প্রকোপ কমাতে আজও আয়ুর্বেদ শাস্ত্রে হলুদের ব্যাপক ব্যবহার রয়েছে।


প্রতিদিন হলুদ দিয়ে তৈরি পানীয় পানে মাথার চুল থেকে পায়ের নখ পর্যন্ত শরীরের প্রতিটি অঙ্গ একেবারে সুস্থ থাকবে। সেই সঙ্গে আয়ুও বাড়বে বলে মনে করেন বোল্ডস্কইয়ের গবেষকরা।


হলুদ মিশ্রিত পানীয় পানে ব্যাকটেরিয়া এবং ভাইরাসের প্রকোপ হ্রাস পায়। সেই সঙ্গে শরীরের নানাবিধ প্রদাহও কমতে শুরু করে। শুধু তাই নয়, লিভার এবং মস্তিষ্ককে চাঙ্গা রাখতেও বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। ফলে কোনো ধরনের জটিল রোগই শরীরে বাসা বাসা বাঁধতে পারে না।


নিম্নে হলুদ দিয়ে একটি পানীয় তৈরির প্রস্তুত প্রণালী দেয়া হল;


উপকরণ: কাঁচা হলুদ বাটা ১ টেবিল চামুচ, ২ কাপ পানি।


প্রস্তুত প্রণালী: প্রথমে চুলায় পানি ফুটিয়ে নিন। এরপর এতে পরিমাণ মতো হলুদ বাটা মিশিয়ে নিন। হলুদ দেয়ার পর পানি আরও ১০ মিনিট ফোটান। এর কিছুক্ষণ পরে হালকা গরম অবস্থায় পানীয়টি পান করুন।


হলুদে রয়েছে প্রচুর মাত্রায় কার্কিউমিন, যা নার্ভে টিস্যুগুলির কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি করে। ফলে স্মৃতিশক্তি ভাল হতে শুরু করে, সেই সঙ্গে ব্রেন পাওয়ারেরও বৃদ্ধি ঘটে। অ্যালঝাইমার রোগকে প্রতিরোধ করতেও এই পানীয়টি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।


একাধিক গবেষণা অনুসারে, লিভারকে সুস্থ রাখতে হলুদ দারুণ কাজে আসে। হলুদে প্রচুর মাত্রায় অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট এবং অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি উপাদান আছে, যা লিভারের ক্ষত সারানোর পাশপাশি শরীরের এই অঙ্গটিকে সুস্থ রাখতে পারে।


হলুদে উপস্থিত কার্কিউমিন লিভার ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার আশংকা কমায়।