জেনে নিন সাধুরা খড়ম কেন পড়েন?

জানা অজানা 30th Mar 17 at 11:36am 792
Googleplus Pint
জেনে নিন সাধুরা খড়ম কেন পড়েন?

চামড়া কিংবা ফোম নয়, ভারতীয় ঐতিহ্যের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে রয়েছে কাঠের পাদুকা। সাধু-সন্ন্যাসী আর খড়ম কার্যত সমার্থক হয়ে দাঁড়িয়েছে। তবে শুধু ভারতেই নয় প্রাচীনকালে কাঠ দিয়ে জুতো বানানোর প্রচলন ছিল গোটা বিশ্বজুড়েই। বিশ্বের প্রাচীনতম খড়ম পাওয়া গিয়েছিল কিন্তু ভারত নয়, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। ইউএসএর ওরেগনে প্রাচীনতম এই খড়ম পাওয়া গিয়েছিল খ্রিষ্টপূর্ব ৭০০০ থেকে ৮০০০ বছর আগে। বর্তমানে চামড়া কিংবা ফোম, জুতো তৈরির কাছে ব্যবহৃত হলেও অতীতে এই দুই উপকরণ মোটেই সহজলভ্য ছিল না। বরং কাঠের প্রাচুর্য ছিল গোটা বিশ্বেই।

স্বাভাবিকভাবেই কাঠই বেছে নেওয়া হতো জুতো তৈরির প্রধানতম উপকরণ হিসেবে।

দীর্ঘস্থায়ী, কম খরচে তৈরি করা হতো বলে কাঠের তৈরি জুতোরই প্রচলন ছিল সব জায়গায়। তা ছাড়া পশুর চামড়া দিয়ে তৈরি জুতো ব্রাক্ষ্ণণ্যবাদীদের কাছে অস্পৃশ্য বলে বিবেচিত হতো। সেই অর্থে কাঠই পবিত্র হিসেবে গণ্য করা হত।

তা ছাড়া অতীতে অনেক যোগগুরুই প্রচণ্ড ঠাণ্ডায় তপস্যা, ধ্যানের কাজে ব্রতী থাকতেন। কাঠ তাপের কুপরিবাহী হওয়ায় সহজেই কাঠ প্রবলতম আবহাওয়ার সঙ্গে যোঝার শক্তি যোগাতেন সাধু-সন্তদের।

Googleplus Pint
Like - Dislike Votes 43 - Rating 5 of 10

পাঠকের মন্তব্য (0)