মাথায় আঘাত লাগলে কী করবেন? কী করবেন না?

সাস্থ্যকথা/হেলথ-টিপস March 27, 2017 1,020
মাথায় আঘাত লাগলে কী করবেন? কী করবেন না?

বহু মানুষই দুর্ঘটনায়, কাজের সময় অসাবধানতায় কিংবা খেলার সময় মাথায় আঘাত লাগে। এক্ষেত্রে মাথায় আঘাত লাগলে কী করতে হবে, সে বিষয়টি সঠিকভাবে জানা না থাকায় এ সমস্যা পরবর্তীতে মারাত্মক হয়ে উঠতে পারে। এ কারণে আঘাত লাগার সঙ্গে সঙ্গে চিকিৎসকরা সে বিষয়টিকে গুরুত্বের সঙ্গে দেখতে ও কিছু প্রাথমিক চিকিৎসা ও পর্যবেক্ষণের পরামর্শ দিচ্ছেন।


আঘাত লাগার পর করণীয়

১. মাথায় আঘাত লাগার পর যদি বড় কোনো সমস্যা দেখা নাও যায় তার পরেও তার হৃৎস্পন্দন ও শ্বাস-প্রশ্বাসের গতি পরিমাপ করতে হবে কোনো অস্বাভাবিকতা রয়েছে কি না, জানার জন্য। পাশাপাশি কোনো অস্বাভাবিকতা লক্ষ্য করলে সঙ্গে সঙ্গে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।


২. আঘাত লাগার পর যদি অজ্ঞান হয়ে যায় তাহলে স্পাইনাল ইনজুরির আশঙ্কা গুরুত্বের সঙ্গে দেখতে হবে। এক্ষেত্রে মেরুদণ্ডে যেন কোনো নড়াচড়া না পড়ে সেজন্য মাথা ও পিঠ সোজা অবস্থায় স্ট্রেচারে করে সাবধানে হাসপাতালে নিতে হবে বা অ্যাম্বুলেন্স ডাকতে হবে।


৩. রক্তপাত হলে ক্ষতস্থানের ওপর পরিষ্কার কাপড় বা ব্যান্ডেজ রেখে স্থিরভাবে হাত দিয়ে চেপে রাখুন কমপক্ষে ১৫ মিনিট। তবে ক্ষত গভীর হলে প্রাথমিক চিকিৎসার পাশাপাশি তাকে নিকটস্থ হাসপাতালে নিয়ে যেতে হবে।


৪. আঘাত যদি অত্যন্ত গভীর হয় এবং খুলিতে ফ্র্যাকচারের আশঙ্কা থাকে তাহলে রক্ত বন্ধের জন্য সরাসরি জোরে চাপ দেওয়া ঠিক হবে না। জীবাণুমুক্ত গজ দিয়ে হালকাভাবে চেপে রাখতে হবে।


৫. মাথায় আঘাত লাগার পর বমি হওয়া অত্যন্ত বিপজ্জনক লক্ষণ। এক্ষেত্রে তাকে নড়াচড়া করার সময় বাড়তি সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। স্ট্রেচারে ওঠাতে হবে। সম্ভব না হলে দেহ যথাসম্ভব সোজা রাখতে হবে।


৬. মাথায় আঘাত লাগার পর সে স্থানে কিছুক্ষণ বরফ দেওয়া যেতে পারে।


যা করবেন না

১. মাথায় আঘাত লাগার পর সে স্থান পানি দিয়ে ধুবেন না। কোনো জিনিস বিদ্ধ হলে তা চিকিৎসকের সহায়তা ছাড়া বের করবেন না।


২. হেলমেট পরা অবস্থায় আঘাত লাগার পর তা যদি আটকে যায় তাহলে তা অদক্ষ হাতে খুলতে যাবেন না।


৩. মাথায় আঘাত লাগার পরবর্তী ৪৮ ঘণ্টা খুব সাবধানে থাকুন। এ সময় অ্যালকোহল পান করা থেকে বিরত থাকুন।


কখন চিকিৎসকের পরামর্শ নেবেন

মাথায় আঘাতের পর যদি অসুস্থতা অনুভূত হয় তাহলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। এক্ষেত্রে মাথা ঘোরা, হতবুদ্ধিতা, সিদ্ধান্তহীনতা, মাথাব্যথা, বমি বমি ভাব, আঘাতের স্থানে ফুলে যাওয়া, রক্তপাত, হাঁটতে অসুবিধা ইত্যাদি লক্ষণগুলো দেখা গেলেও অবহেলা করবেন না।