পেঁয়াজের অজানা যত গুণ

সাস্থ্যকথা/হেলথ-টিপস March 18, 2017 838
পেঁয়াজের অজানা যত গুণ

প্রতিদিনের রান্নায় যে জিনিসটি আপনার প্রয়োজন তা হচ্ছে পেঁয়াজ। খাবারের স্বাদ আর পুষ্টি বাড়াতে পেঁয়াজের জুড়ি নেই। শুধু কি তাই, এই পেঁয়াজের কারণেই বিভিন্ন অসুখ-বিসুখ আপনার কাছে ঘেষতে সাহস পাচ্ছে না। আপনার অগোচরেই আপনার এতসব উপকার করে যাচ্ছে এই পেঁয়াজ। চলুন তবে জেনে নেই-


পেঁয়াজ উচ্চ রক্তচাপ কমিয়ে দেয় এবং কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ রাখে। এর সালফার, ভিটামিন বি৬, ক্রৌমিয়াম উপাদান যা বিভিন্ন হৃদযন্ত্র সংক্রান্ত রোগ প্রতিরোধ করে হার্ট অ্যাটাক এবং স্টোক প্রতিরোধ করে।


ত্বকে পোকার কামড়ের জ্বালাপোড়া, চুলকানি দূর করতে পেঁয়াজ বেশ কার্যকরী। পোকা কামড়ের স্থানে পেঁয়াজের টুকরো ঘষে লাগান।


মাসিক শুরু হওয়ার কিছুদিন আগ থেকে প্রতিদিনকার ডায়েটে একটি করে কাঁচা পেঁয়াজ রাখুন। এটি মাসিকের পেট ব্যথা অনেক কমিয়ে দেবে।


অনেকসময় রান্না করতে যাওয়ার সময় তেল অথবা গরম পানি হাতে পড়ে ফোস্কা পড়ে যেতে পারে। একটি টুকরো পেঁয়াজ ফোস্কার স্থানে লাগিয়ে দিন। দেখবেন আর জ্বালাপোড়া সাথে সাথে কমে গেছে। পেঁয়াজের অ্যান্টি ইনফ্লামেনটরি উপাদান ছোটখাটো পোড়া ভালো করে দেয়।


পেঁয়াজে থাকা উপাদান ইউরিন ইনফেকশন দূর করতে সাহায্য করে। ৬ থেকে ৭ গ্রাম পেঁয়াজ পানিতে দিয়ে জ্বাল দিন। তারপর এটি পান করুন।


আপনরা যদি অল্প জ্বর থাকে তবে রাতে শোয়ার সময় পায়ে মোজা পরে মোজার ভেতর এক টুকরো পেঁয়াজ ঢুকিয়ে রাখুন। এইভাবে ঘুমান। পরেরদিন দেখবেন জ্বর অনেক খানি কমে গেছে। এছাড়া বমি বমি লাগলে ২ চা চামচ পেঁয়াজের রস খেয়ে নিন। দেখবেন বমি বমি ভাব দূর হয়ে গেছে।


বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে পেঁয়াজ কিছু ক্যান্সার যেমন ওরাল ক্যান্সার, কলোরেক্টাল ক্যান্সার, পাকস্থলী ক্যান্সার এবং ওভারিয়ান ক্যান্সার প্রতিরোধ করে। প্রতিদিন ১/২ কাপের মতো পেঁয়াজ খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন বিশেষজ্ঞরা।