কম খরচে ঘুরে আসুন বান্দরবনের ১০টি স্পট!

দেখা হয় নাই March 3, 2017 2,887
কম খরচে ঘুরে আসুন বান্দরবনের ১০টি স্পট!

মেঘ ছুঁয়ে দেখার ইচ্ছে যার আছে সে সহজেই বাংলাদেশের পাহাড়ী কন্যা বান্দরবান ঘুরে আসতে পারেন।


বান্দরবান শহর থেকে প্রায় ৪ কিলোমিটার দূরে বালাঘাটায় রয়েছে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় বৌদ্ধ মন্দির। এটি সম্পূর্ণরূপে দক্ষিণ-পশ্চিম এশিয়ার মন্দিরগুলোর অনুকরণে তৈরি করা হয়েছে এবং বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম বৌদ্ধ মুর্তিটি এখানে রয়েছে। স্থানীয়ভাবে এটি হলো "বুদ্ধ ধাতু জাদি"। এছাড়া শহরের মধ্যেই রয়েছে জাদিপাড়ার রাজবিহার এবং উজানীপাড়ার বিহার। শহর থেকে চিম্বুকের পথে যেতে পড়বে বম ও ম্রো উপজাতীয়দের গ্রাম।


প্রান্তিক হ্রদ, জীবননগর এবং কিয়াচলং হ্রদ আরও কয়েকটি উল্লেখ্য পর্যটন স্থান। রয়েছে মেঘলা সাফারী পার্ক, যেখানে রয়েছে দুটি সম্পূর্ণ ঝুলন্ত সেতু। সাঙ্গু নদীতে নৌকা ভ্রমণ, ভ্রমণ পিয়াসীদের জন্য হতে পারে একটি মনোহর অভিজ্ঞতা।


বান্দরবান শহর থেকে ৮ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত শৈল প্রপাত একটি আকর্ষণীয় পাহাড়ি ঝর্ণা।


এছাড়া বাংলাদেশের উচ্চতম পর্বতশৃঙ্গ তাজিংডং এবং বৃহত্তম পর্বতশৃঙ্গ কেওক্রাডং এই বান্দরবান জেলাতেই অবস্থিত।


মৌসুমগুলোতে এই দুটি পর্বতশৃঙ্গে আরোহন করার জন্য পর্যটকদের ভীড় জমে উঠে। পর্যটকরা সাধারণত বগা লেক থেকে হেঁটে কেওক্রাডং এ যান। অনেকেই আছেন যারা কেওক্রাডং না গিয়ে বগা লেক থেকে ফিরে আসেন। এই হ্রদটিও বিশেষ দর্শনীয় স্থান। হ্রদসন্নিহিত এলাকায় বম উপজাতিদের বাস।


বাংলাদেশের পর্যটন শিল্পকে আরো সমাদৃত করতে প্রতিনিয়ত কাজ করছে ট্রাভেল২৪। এবার প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে বান্দরবনের ১০টি স্পট ঘুরিয়ে আনার ব্যাবস্থা করেছে। এ সর্ম্পকিত একটি ইভেন্ট ফেইসবুকে খুলেছে।


প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে ট্যুর জন্য ফি নির্ধারন করা হয়েছে মাত্র ৬১৪৫ টাকা । দিন ধার্য করা হয়েছে ২৪, ২৫ মার্চ ২০১৭।


শুক্র শনি। কাপলদের জন্য আলাদা রুমের ব্যাবস্থা থাকবে। দুই দিনের জন্য রিজার্ভ চান্দের গাড়িতে করে নীলগিরি, নীলাচল, স্বর্ণমন্দির, প্রান্তিক লেক, সাঙ্গু নদী, রামজাদি, চিম্বুক পাহাড়, শৈলপ্রপাত, মেঘলা এবং থানচি ভ্রমণ করা হবে। বুকিং দেয়ার শেষ তারিখঃ ৫ মার্চ। যোগাযোগ করতে পারেন: ০১৭৬৪ ১০১ ১০৩ এই নাম্বারে।