আপেল সিডার ভিনেগারে স্বাস্থ্য উপকারিতা

সাস্থ্যকথা/হেলথ-টিপস 24th Feb 17 at 10:05am 1,354
Googleplus Pint
আপেল সিডার ভিনেগারে স্বাস্থ্য উপকারিতা

সাদা ভিনেগারের প্রচুর ব্যবহার থাকলেও আপেল সিডার ভিনেগারে ও রয়েছে আরো বহুমুখী ব্যবহার। বিশাল পরিসরের উপকারিতার মধ্যে রয়েছে টি ট্রি অয়েল এর পরিবর্তে আপেল সিডার এর ব্যবহার, হেচকি থেকে নিরাময়, ঠাণ্ডাজনিত রোগমুক্তি।

কিছু মানুষ স্বাস্থ্য রক্ষায় নিয়মিত এটিকে ব্যবহার করেন যেমন, ডায়াবেটিস, ক্যানসার, হার্টের সমস্যা, হাই কোলেস্টেরল ও ওজন কমানো ইত্যাদি।

আপেল সিডার ভিনেগারের ১৫টি স্বাস্থ্য উপকারিতা নিয়ে দুই পর্বের প্রতিবেদনের প্রথম পর্বে ৭টি উপকারিতা প্রকাশ করা হয়েছিল। আজ শেষ পর্বে জেনে নিন আরো ৮টি উপকারিতা।

রাতে পায়ের পেশিতে টান প্রতিরোধে : আপনার যদি রাতে প্রায়ই পায়ের পেশিতে টান লাগে, তাহলে বুঝতে হবে আপনার পটাশিয়াম এর ঘাটতি রয়েছে। আর আপেল সিডার ভিনেগারে রয়েছে প্রচুর পরিমানে পটাশিয়াম। এক গ্লাস কুসুম গরম পানিতে দুই টেবিল চামচ আপেল সিডার ভিনেগার, এক চা-চামচ মধু এ সমস্যা হতে আপনাকে মুক্তি দিতে পারে।

ব্রণের সমস্যা দূরীকরণে : ব্রণ সমস্যার একটি ঘরোয়া সমাধান হল আপেল সিডার ভিনেগার। এতে রয়েছে অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল উপাদান, যা ব্রণকে নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে। এই ভিনেগারে রয়েছে ম্যালিক অ্যাসিড ও ল্যাকটিক অ্যাসিড, যা ত্বক করে মোলায়েম ও কোমল, লাল দাগকে রোধ করে এবং ত্বকের পিএইচ এর মাত্রার ভারসাম্য রক্ষা করে।

শক্তি উদ্দীপক : অনেক সময় ব্যায়াম বা অধিক চাপ দেহে অবসাদ কারণ হয়ে দাড়ায়। আপেল সিডার ভিনেগারে থাকা অ্যামাইনো অ্যাসিড প্রতিরোধক হিসেবে কাজ করে। এতে থাকা পটাশিয়াম ও এনজাইম ক্লান্তভাবকে দূর করে। এক গ্লাস পানিতে বা সবজিতে এক বা দুই টেবিল চামচ আপেল সিডার ভিনেগার মিশিয়ে খেলে পুনরায় উদ্দীপনা ফিরে পাওয়া যায়।

মুখের দুর্গন্ধ তাড়াতে : নিয়মিতভাবে ব্রাশ ও মাউথওয়াশ ব্যবহার করার পরেও মুখের দুর্গন্ধ যাচ্ছে না? তাহলে আপেল সিডার ভিনেগার ব্যবহার করে দেখতে পারেন। কুলকুচা করে বা এক চামচ পান করে (পানির সঙ্গে মিশিয়ে নিতে পারেন) মুখের দুর্গন্ধ সৃষ্টিকারী ব্যাকটেরিয়াগুলো মেরে ফেলতে পারেন।

সাদা ধবধবে দাঁতের জন্য : প্রতিদিন সকালে আপেল সিডার ভিনেগার দিয়ে কুলকুচা করে নিলে আপনার দাঁত হবে ঝকঝকে সাদা, পাশাপাশি আপনার মুখের জীবাণু ও ব্যাকটেরিয়াগুলো ধ্বংস করতেও সাহায্য করবে। কুলকুচা করার পর দাঁত মেজে ফেলবেন। সপ্তাহে একদিন বেকিং পাউডার যোগ করে দাঁত মাজতে পারেন ঝকঝকে দাঁতের জন্য। বিকল্প টুথপেস্ট হিসেবে লবণ ব্যবহার করেও ভালো ফল পাওয়া যায়। এটি একদিন পরপর করা যেতে পারে।

চুলের খুশকি দূরীকরণে : ড. মেহমেত ওজ তার ওয়েবসাইটে খুশকির সমাধান হিসেবে আপেল সিডার ভিনেগার ব্যবহার এর নির্দেশনা দেন। এই ভিনেগার এর অম্লতা মাথা তালুর পিএইচ এর মাত্রার পরিবর্তন করে। ১/৪ কাপ পানিতে ১/৪ কাপ আপেল সিডার ভিনেগার মিশিয়ে একটি স্প্রে বোতলে ভরে মাথার তালুতে স্প্রে করে একটি টাওয়েল দিয়ে ১৫ মিনিট থেকে এক ঘণ্টার জন্য পেঁচিয়ে রেখে সাধারণভাবেই চুল ধুয়ে ফেলতে হবে। ভালো ফলাফলের জন্য সপ্তাহে দুইবার এটি করা যেতে পারে।

কালশিটে দাগ মুছতে : আপেল সিডার ভিনেগারে রয়েছে অ্যান্টি ইনফ্লামাটরি উপাদান। কালশিটে দাগ এর ওপর এটির প্রলেপ আস্তে আস্তে দাগ বিলীন করতে সাহায্য করে।

রক্তে চিনির মাত্রা নিয়ন্ত্রণে : একাধিক গবেষণাতে দেখা গেছে, আপেল সিডার ভিনেগার সেবন রক্তের চিনির ভারসাম্য রক্ষা করতে সাহায্য করে। দুইটি গবেষণার ফলাফল দেখা যাক। একটি গবেষণায় দেখা যায় ডায়াবেটিস রোগী ইনসুলিন গ্রহণ না করে দুই টেবিল চামচ আপেল সিডার ভিনেগার পান করলে সকালে গ্লুকোজ এর মাত্রা নিয়ন্ত্রণে থাকে।

অ্যারিজোনা স্টেট ইউনিভার্সিটির এক গবেষণাতে দেখা গেছে, যে সকল লোক শর্করা জাতীয় খাবার গ্রহণের আগে আপেল সিডার ভিনেগার পান করেন তাদের রক্তে চিনির মাত্রা কম। বিজ্ঞানীরা মনে করেন এর অ্যান্টি গ্লাইসেমিকের প্রভাব এর মূল চাবিকাঠি।

Googleplus Pint
Like - Dislike Votes 23 - Rating 5 of 10

পাঠকের মন্তব্য (0)