ফাগুনের সাজ!

সাজগোজ টিপস 7th Feb 17 at 7:22am 867
Googleplus Pint
ফাগুনের সাজ!

গাছে গাছে উঁকি দিচ্ছে সবুজ-কচি পাতা আর নানা রঙের ফুল। বাতাসে ভেসে আসা আমের মুকুলের গন্ধ কিংবা হঠাৎ বয়ে আসা দখিনা বাতাস পরশ বুলিয়ে দেয় দেহ-মনে। আর তখনই অনুভব হয়, প্রকৃতিতে ঋতুরাজ বসন্তের আবির্ভাব ঘটেছে। বসন্তের আগমন ঘটেছে।

সময় এখন তাই বসন্তের রঙে নিজেকে রাঙানোর। এই তো সময়। গুনগুনিয়ে গাইতে ইচ্ছে করে, ‘ও পারুল বোন দাও রাঙিয়ে মন, কৃষ্ণচূড়া দোপাটি আর পলাশ দিল ডাক।’ লাল-হলুদের এ রঙের মেলায় কোন সাজে নিজেকে সাজিয়ে প্রকৃতির সঙ্গে একাকার হবেন আপনি।

বসন্তের আগমনী বার্তা জানিয়ে কবিগুরু গেয়েছিলেন ওরে ভাই, ফাগুন লেগেছে বনে বনে-

ডালে ডালে ফুলে ফলে পাতায় পাতায় রে,

আড়ালে আড়ালে কোণে কোণে।

কিংবা আজি বসন্ত জাগ্রত দ্বারে।

তব অবগুণ্ঠিত কুণ্ঠিত জীবনে

করো না বিড়ম্বিত তারে।

অর্থাৎ ঋতুরাজ বসন্ত দুয়ারে দাঁড়িয়ে, এবার আপনার পালা তাকে বরণ করে নেয়ার। আর বসন্তকে বরণ করে নিতে প্রকৃতির মতো আপনিও সাজুন রঙিন সাজে।

বসন্ত বরণের সাজ

বসন্তের প্রকৃতি আর পোশাকে থাকে রঙের ছড়াছড়ি। লাল, হলুদ, সবুজ কমলার মতো উজ্জ্বল সব রঙের পোশাক এ সময়টাতে প্রকৃতির রঙের সৌন্দর্যই যেন প্রকাশ করে। আর এ ধরনের উজ্জ্বল রঙের পোশাকের সঙ্গে দরকার যথাযথ মেকআপ। মেকআপ নেয়ার আগে মুখ মেকআপের উপযোগী করে তুলতে ভালোভাবে ক্লিনজিং করে নিন। এবার ময়েশ্চারাইজিং ক্রিম লাগিয়ে নিন। ১০ মিনিট পর ফাউন্ডেশনের সঙ্গে কয়েক ফোঁটা পানি মিশিয়ে পুরো মুখে লাগিয়ে নিন। ফাউন্ডেশন মসৃণভাবে ত্বকে মিশিয়ে নিন। এবার ফেসপাউডার বুলিয়ে নিন। এরপর হালকা করে ব্লাশ দিন।

বসন্তের সাজে আইশ্যাডো ব্যবহার করতে পারেন গোল্ডেন, সব–জ, লেমনসহ ইচ্ছামতো নানা রঙের। ফাগুনের প্রথম দিনে বসন্ত বরণ উৎসবে ঘোরাঘুরি বেশিরভাগ দিনের বেলাতেই হয়, আর পোশাকটাও উজ্জ্বল থাকে, তাই হালকা করে আইশ্যাডো লাগিয়ে নিন। চাইলে সবুজ, নীল জাতীয় আইপেন্সিল দিয়ে আইলাইনারের মতো লাগাতে পারেন। তা না হলে একটু গাঢ় করে আইলাইনার ও কাজল লাগিয়ে নিন।

এবার পছন্দমতো লিপস্টিক লাগিয়ে নিন। এদিনের সাজে লাল, অরেঞ্জ, ব্রাউনসহ যে কোনো লিপস্টিকই ভালো লাগবে।

শীতের শুষ্কতা এখনও রয়ে গেছে প্রকৃতিতে, তাই চাইলে লিপস্টিকের ওপর একটু লিপগ্লসও বুলিয়ে নিতে পারেন। লিপস্টিক একটু গাঢ় রঙের বেছে নিন।

চুলে ফুলে বসন্ত

চুলের আসল সৌন্দর্য খোলা চুলেই প্রকাশ পায়। আর পহেলা ফাগুন তথা বসন্তের সূচনালগ্নে আয়োজিত অনুষ্ঠানে যেহেতু চুলে ফুল ব্যবহার করার রেওয়াজ রয়েছে। তাই খোলা চুলে ফুল লাগিয়ে বসন্তের সাজে আপনি হয়ে উঠতে পারেন অনন্যা।

চুল ব্লোডাই, স্ট্রেইট কিংবা কার্লি করে সামনের সেট করে ছেড়ে রাখতে পারেন। সাজে পূর্ণতা দিতে মাথায় জারবেরা, গ্ল্যাডিওলাস, গোলাপ, জিপসি ফুলের ব্যান্ড পরতে পারেন। এরকম ব্যান্ড এখন ফুলের দোকানগুলোতে পাওয়া যায়।

কিংবা ইচ্ছামতো ফুল পরতে পারেন। বসন্তের সাজে বেণীরও জুড়ি নেই। কপালের সামনের কিছু চুল আলাদা করুন। আর পেছনের চুলে হালকা পাফ করে নিন। সামনের চুলগুলো সাজাতে পারেন ইচ্ছামতো। একপাশে সিঁথি করে কপালের সামনের দুই পাশের চুল টুইস্ট করে পেঁচিয়ে ক্লিপ দিয়ে কানের দুই পাশে আটকে দিন। এবার পছন্দের চুলগুলোকে খেজুর বেণী করে ফেলুন। চুল ছোট হলে মন খারাপ করবেন না।

টারসেল ব্যবহার করুন। এবার পছন্দের ফুল কানের দুইপাশে গুঁজে দিন। আর ছোট ছোট ফুল বসিয়ে দিন পুরো বেণীতে।

চাইলে খোঁপাও করতে পারেন। তবে পরিপাটি খোঁপা কিন্তু এখন চলছে না। এর বদলে খোঁপা করতে সামনের চুলগুলো কার্লি করে ইচ্ছামতো সিঁথি করে কানের দুই পাশে এলোমেলো করে ফেলে রাখুন। এবার পেছনের চুল হালকা করে পেঁচিয়ে কিছুটা এলোমেলো ভাবে এলো খোঁপা করুন। খোঁপার চারপাশে ইচ্ছামতো গুঁজে দিন জিপসি, জারবারা কিংবা চন্দ্রমল্লিকা।

ফুলই হোক গয়না

এ সময় প্রকৃতি আমাদের যে ফুলগুলো দেয় তা আমরা অন্য সময় পাই না। চারদিক রঙিন ফুলে থাকে সুরভিত। বসন্তের ফুলের সাজের কাছে তাই হার মানে দামি গহনাও। শুধু চুলে নয় এ দিনটিতে পরতে পারেন ফুলের গয়নাও। শাড়ি, সালোয়ার-কামিজ সব ধরনের পোশাকের সঙ্গেই এ ধরনের গহনা ভালো লাগবে। গাঁদা, গোলাপ, জারবারা, চন্দ্রমল্লিকাসহ নানা রকম ফুল দিয়ে বানাতে পারেন গলার মালা ও কানের দুল। হাতে ব্রেসলেটের মতো করে জড়াতে পারেন ফুলের মালা কিংবা শাড়ির সঙ্গে কোমরে ফুলের বিছা পরে সাজে আনতে পারেন বৈচিত্র্য।

মডেলের সাজে বেইজ মেকআপ দিয়ে উজ্জ্বল রঙের আইশ্যাডো ব্যবহার করা হয়েছে। সঙ্গে রয়েছে গাঢ় করে লাগানো আইলাইনার, কাজল ও মাশকারা। চুলের সাজে সামনে একটু উঁচু করে সামনে থেকে কয়েকটি বেণী এনে পেছনে খুব সুন্দর একটি খোঁপা করা হয়েছে।

Googleplus Pint
Like - Dislike Votes 45 - Rating 4 of 10

পাঠকের মন্তব্য (0)