চুলের যত্নে জবা ফুল কীভাবে ব্যবহার করবেন?

রূপচর্চা/বিউটি-টিপস December 9, 2016 1,046
চুলের যত্নে জবা ফুল কীভাবে ব্যবহার করবেন?

দিন দিন আপনার চুলের উজ্জ্বলতা ও কোমলতা হারাচ্ছে? ঋতুর পরিবর্তন ও বয়সের সঙ্গে সঙ্গে চুল তার আগের স্বাস্থ্যোজ্জলতা হারিয়ে ফেলে। সেই চুল ফিরে পেতে আপনি ভেষজ উপাদান যেমন- জবা ফুল ব্যবহার করতে পারেন। চুলের বৃদ্ধি ও পুষ্টি জোগাতে এই উপাদান বেশ কার্যকরী।


আজকের আয়োজনে থাকছে চুলের বিভিন্ন ধরনের যত্নে কীভাবে জবা ফুল ও এই ফুল গাছের পাতা ব্যবহার করবেন, এই বিষয়ে পরামর্শ দিয়েছে অনলাইন বিউটি সাইট ‘স্টাইল ক্রেজ ডটকম’। চলুন এক নজর দেখে আসি।


১। চুলের দ্রুত বৃদ্ধিতে

প্রথমে ৮ থেকে ৯টি জবা ফুল ও পাতা নিয়ে ভালো করে ধুয়ে তা থেঁতলে নিন। এরপর একটি পাত্রে এক কাপ নারিকেল তেল নিয়ে তাতে জবা ফুলের পেস্ট দিয়ে সেদ্ধ করে নিন। ঢেকে রেখে ঠান্ডা করে নিন এবং এই তেল চুল ও মাথার তালুতে ম্যাসাজ করে নিন। ৩০ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন। যদি পারেন চুলে সারারাত রেখে দিন এবং পরের দিন মাইল্ড শ্যাম্পু ব্যবহার করে ধুয়ে ফেলুন। বায়ুরোধক পাত্রে সংরক্ষণ করে নিয়মিত ব্যবহার করতে পারেন। এটি চুলকে দ্রুত বৃদ্ধির পাশাপাশি কোমল ও পুষ্টি জোগাতে সাহায্য করে।


২। চুলকে মজবুত রাখতে

জবা গাছের পাতা থেঁতলে পেস্ট করে তাতে চার টেবিল চামচ টক দই মিশিয়ে চুল ও তালুতে লাগান। এক ঘণ্টার জন্য রেখে শ্যাম্পু করে কুসুম গরম পানি দিয়ে চুল ধুয়ে নিন। চুলের গোঁড়া মজবুত করতে ও বৃদ্ধিতে এই প্যাক সাহায্য করে।


৩। খুশকি দূর করতে

এক টেবিল চামচ মেথি বীজ সারারাত ভিজিয়ে রাখুন। শুকনো জবা পাতা ও মেথি বীজ একসঙ্গে বেটে এর সঙ্গে বাটার মিল্ক মেশান। এই পেস্টটি মাথার তালুতে লাগিয়ে খুশকিকে বিদায় জানান। এ ছাড়া জবা পাতা ও মেহেদি পাতা একসাথে গুঁড়া করে তাতে অর্ধেক লেবুর রস দিয়ে চুলে লাগান। এটি চুলের খুশকি দূর করার পাশাপাশি কন্ডিশনিং করতে সাহায্য করবে।


৪। স্বাস্থ্যোজ্জ্বল চুল পেতে

তিন টেবিল চামচ আমলা পাউডার নিয়ে তাতে তিন টেবিল চামচ জবা গাছের পাতার গুঁড়া মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে নিন। এক্ষেত্রে আমলার রসও ব্যবহার করতে পারেন। প্যাক লাগিয়ে ৪০ মিনিট অপেক্ষা করুন এবং ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত ব্যবহারে এই প্যাক স্বাস্থ্যোজ্জ্বল চুল পেতে সাহায্য করবে।


৫। চুলকে কন্ডিশনিং করতে

আটটি জবা ফুল থেঁতলে নিয়ে প্রয়োজনীয় পানি ব্যবহার করে পেস্ট তৈরি করুন। পরিষ্কার চুল ও তালুতে লাগিয়ে এক ঘণ্টা অপেক্ষা করুন। এরপর কুসুম গরম পানি দিয়ে চুল ধুয়ে নিন। চুলের গোঁড়া থেকে পুষ্টি জুগিয়ে চুলকে করে তুলবে আরো উজ্জ্বল ও ঝলমলে।