“Flowers of War” একদল পতিতার গল্প

মুভি রিভিউ 15th Aug 16 at 11:14pm 2,591
Googleplus Pint
“Flowers of War” একদল পতিতার গল্প

“Prostitutes never care

About a falling nation,”

They sing and dance

While other are dying.”


“পতিতারা কখনো কাঁদেনা

পতিত জাতির তরে

তারা নাচে আর গায়

যখন আর সবাই মরে।” (ভাবানুবাদ)


The Flowers of War একদল পতিতার গল্প। গল্পটা একজন কিশোর আর একদল কিশোরীর। এক মাতাল আমেরিকান Mortician(মৃতদেহের সৎকার করে যে) আর একটা চার্চের। সর্বোপরি, গল্পটা একটা যুদ্ধের। ১৯৩৭, Second Sino-Japanese war । টানা ২০ দিন বোম্বিং শেষে জাপানিজরা চীনের রাজধানী Nanking দখল করে নিয়েছে। একজন আমেরিকান mortician জন মিলার (Bale) Nanking শহরে রেড ক্রস পরিচালিত এক ক্যাথলিক চার্চে এসে পৌছায় মৃত প্রিস্ট-কে সমাহিত করার জন্যে। চার্চে ছিল একদল অল্পবয়সী Schoolgirl আর তাদের সমবয়সী এক ছেলে জর্জ। কিছুক্ষণ পর সেখানে এসে আশ্রয় নেয় একদল পতিতা এবং তারা দখল করে নেয় চার্চের মেয়েদের লুকোনোর গোপন বেজমেন্ট। পরদিন এক প্লাটুন জাপানি সৈন্য চার্চ আক্রমণ করে। পতিতারা তখন নিরাপদ জায়গায় লুকাতে পারলেও schoolgirl রা পারেনা। সৈন্যরা চেষ্টা করে তাদের রেপ করতে। জন তখন প্রিস্ট এর পোশাক পরে নিজেকে প্রিস্ট বলে পরিচয় দেয় এবং মেয়েদের রক্ষা করতে যায়। কিন্তু পারেনা। চাইনিজ মেজর Li (Dawei Tong) যে কিনা তার ট্রুপ এর একমাত্র surviver , নিজের জীবন বিপন্ন করে লড়ে যায় এবং মেয়েদের রক্ষা করে।


দৃশ্যপটে এবার হাজির হন জাপানিজ কর্নেল Hasegawa । চার্চে হামলা হওয়ায় তিনি দুঃখ প্রকাশ করেন। প্রিস্ট-রুপী জন-কে কথা দেন আর কোন হামলা হবেনা এবং চার্চের মেয়েদের রক্ষা করার জন্য তিনি চার্চের বাইরে গার্ড রেখে যান।



বাইরে গেলেই নিশ্চিত মৃত্যূ আর চার্চের ভিতরে কতদিন নিরাপদ থাকা যাবে তারও কোন নিশ্চয়তা নেই। জন আর জর্জ চেষ্টা করে যাচ্ছে চার্চে পড়ে থাকা নষ্ট গাড়িটা ঠিক করার যাতে করে পালিয়ে যাওয়া যাবে। চার্চের চারপাশে বন্দুক হাতে দাঁড়িয়ে আছে জাপানিজ আর্মি যারা জানেনা ভিতরে একদল পতিতাও আছে।

তারপর? জন কি পেরেছিল সবাইকে নিয়ে পালাতে? কর্নেল Hasegawa কি সত্যিই রক্ষা করতে চেয়েছিলেন মেয়েদের? জানতে হলে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব দেখে ফেলুন মুভিটা। কথা দিচ্ছি চোখ ভিজে যাবে।


এতে যুদ্ধের ভয়াবহতা ফুটিয়ে তোলা হয়েছে দারুণভাবে। একবারে প্রথম সেকেন্ড থেকেই আবহসংগীত অসাধারণ। সিনেমাটোগ্রাফী সুন্দর। খুব সুন্দর একটা গান আছে।

Christian Bale বরাবরের মতই মুগ্ধ করেছেন। নায়িকা(পতিতাদের একজন) Ni Ni এই ছবির জন্য Best Newcomer ক্যাটাগরীতে Asian Film Award পেয়েছেন।

Googleplus Pint
Like - Dislike Votes 54 - Rating 4 of 10

পাঠকের মন্তব্য (0)